বাল্যবিবাহমুক্ত ইউনিয়ন গড়ে তুলতে চান নারীনেত্রী হোসনে আরা

হোসনে আরা বেগম, বাল্যবিবাহের বিরুদ্ধে সোচ্চার এক নারীনেত্রীর নাম। তিনি কুমিল্লা জেলার লাকসাম উপজেলার উত্তরদা ইউনিয়নের বাসিন্দা। হোসনে আরা ২০১২ সালে দি হাঙ্গার প্রজেক্ট-এর পরিচালনায় ‘নারী নেতৃত্ব বিকাশ’ শীর্ষক বুনিয়াদি প্রশিক্ষণে (৮২তম ব্যাচ) অংশগ্রহণ করেন। প্রশিক্ষণে তিনি সামাজিক দায়বদ্ধতা বোধে উদ্বুদ্ধ হয়ে উঠেন। প্রশিক্ষণ থেকে ফিরে তিনি তার এলাকায় বিভিন্ন সচেতনতা বৃদ্ধিমূলক উঠান বৈঠকের আয়োজন করেন। মাঝখানে কিছুদিন পারিবারিক ব্যস্ততার কারণে নিজেকে কিছুটা গুটিয়ে নেন হোসনে আরা। কিন্তু ২০১৫ সালের শুরু থেকে তিনি আবার সমাজ উন্নয়নমূলক কাজে নিজেকে যুক্ত রেখেছেন।

হোসনে আরা ‘নারী নেতৃত্ব বিকাশ’ প্রশিক্ষণ থেকে অবগত হয়েছেন যে, আজকের কন্যাশিশু আগামী দিনের মা। কিন্তু বিরাজমান সামাজিক দৃষ্টিভঙ্গি ও অভিভাবকদের সচেতনতার অভাবে এই কন্যাশিশুদের অনেকেই বাল্যবিবাহের শিকার হয়। এরফলে তারা পুষ্টি ও শিক্ষার অধিকার থেকে বঞ্চিত হয়। তাই বাল্যবিবাহ কন্যাশিশুদের জন্য একটি অভিশাপ, যা থেকে কন্যাশিশুদের রক্ষা করা আবশ্যক।

গত ০৪ জুন হোসনে আরা খবর পান, তার গ্রামের ১৪ বছর বয়য়ী স্কুলছাত্রী পপি আক্তারের বিয়ে ঠিক করেছেন তার বাবা-মা। তখন তিনি মোটেও দেরি না করে পপির বাড়িতে ছুটে যান। পপির মা ফাতেমা বেগম এবং বাবা ফরিদ মিয়াকে বাল্যবিবাহের কুফল সম্পর্কে বোঝানোর চেষ্টা করেন। তার কথায় পপির বাবা-মা তাদের ভুল বুঝতে পারেন এবং পপিকে এখনই বিয়ে দেয়া থেকে বিরত থাকেন। এভাবে হোসনে আরার পদক্ষেপের ফলে পপি আক্তার বাল্যবিবাহের শিকার হওয়া থেকে রক্ষা পায়। হোসনে আরার লক্ষ্য– তার প্রিয় উত্তরদা ইউনিয়নকে পুরোপুরি বাল্যবিবাহের অভিশাপ থেকে মুক্ত ইউনিয়ন হিসেবে গড়ে তোলা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.