উজ্জীবক হেলাল আহমদের বিশ্বাস– ‘কর্মেই মুক্তি’

মানুষ তার আত্মশক্তিকে কাজে লাগিয়ে নিজের জীবনে পরিবর্তন আনতে পারে– এর উজ্জ্বল উদাহরণ হলেন উজ্জীবক হেলাল আহমদ। তিনি দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার পূর্ব পাগলা ইউনিয়নের খুদিরাই গ্রামের বাসিন্দা। ২০০০ সালে এসএসসি পরীক্ষায় ফলাফল ভাল না হওয়ায় আর লেখাপড়া হয়নি হেলালের। ২০১৪ সালে তিনি পূর্ব পাগলা ইউনিয়নে দি হাঙ্গার প্রজেক্ট আয়োজিত উজ্জীবক প্রশিক্ষণে (২,০৫৭তম ব্যাচ) অংশগ্রহণ করেন। প্রশিক্ষণে অংশ নেয়ার পর হেলাল নিজেকে আত্মনির্ভরশীল করে তোলার স্বপ্ন দেখতে শুরু করেন। শুরু হয় তার জীবনযুদ্ধে জয়ী হওয়ার সংগ্রাম।
হেলাল আহমদ এরপর ফার্মেসির ওপর ছয় মাসের কোর্স সম্পন্ন করেন। এরপর তিনি স্থানীয় বাজারে ওষুধের দোকান দেন। এর মাধ্যমে মানুষের উপকার করা যাবে– এমন চিন্তা থেকে তিনি এ পেশা বেছে নেন। বর্তমানে তার দোকানে এক লাখ বিশ হাজার টাকার ওষুধ আছে। তাকে প্রতিমাসে দোকান ভাড়া বাবদ এক হাজার টাকা পরিশোধ করতে হয়। দোকানে একজন কর্মচারী রাখা আছে। বর্তমানে এ ফার্মেসি ব্যবসা থেকে তার মাসিক আয় হয় প্রায় দশ হাজার টাকা।
হেলাল আহমদ জানান, উজ্জীবক প্রশিক্ষণই তাকে শিখিয়েছে– প্রতিটি মানুষের মধ্যে রয়েছে কর্ম করার শক্তি। সেই শক্তিকে কাজে লাগাতে পারলে প্রতিটি মানুষই হতে পারে আত্মনির্ভরশীল। এ বিশ্বাসকে কাজে লাগিয়েই তিনি বর্তমানে অনেকটাই স্বচ্ছলভাবে জীবন-যাপন করছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.