বিকশিত নারী নেটওয়ার্ক-এর কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটি গঠন

BNN Committe Formation (3)গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় সদস্যদের প্রত্যক্ষ ভোটের মাধ্যমে গঠিত হলো ২০১৫-১৭ সালের বিকশিত নারী নেটওয়ার্ক-এর কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটি। ১৩ জুন ২০১৫ পদক্ষেপ মানবিক উন্নয়ন প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত এক সভার মাধ্যমে এ কমিটি গঠিত হয়। সভায় নেটওয়ার্ক-এর ৪৩টি জেলা ও তিনটি উপজেলা কমিটির প্রতিনিধি এবং বিদায়ী কমিটির সদস্যগণ-সহ মোট ৫৭ জন উপস্থিত ছিলেন। নতুন কমিটিতে দ্বিতীয়বারের মত সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হন চৌদ্দগ্রাম উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান রাশেদা আখ্তার (কুমিল্লা)। উল্লেখ্য, নেটওয়ার্ক-এর গঠনতন্ত্র অনুযায়ী সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন দি হাঙ্গার প্রজেক্ট-বাংলাদেশ-এর উপ-পরিচালক নাছিমা আক্তার জলি। নতুন কমিটিতে সহ-সভাপতি হিসেবে বাগেরহাট সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট পারভীন আহমেদ (খুলনা), সহ-সম্পাদক হিসেবে নারীনেত্রী ইরা হক (রংপুর) এবং কোষাধ্যক্ষ হিসেবে নারীনেত্রী আঞ্জু আনোয়ারা ময়না (ময়মনসিংহ) নির্বাচিত হয়েছেন। এছাড়া কমিটিতে সদস্য হিসেবে স্থান পেয়েছেন নারীনেত্রী সেলিমা মশির (ঢাকা), শাহানা বেগম (চট্টগ্রাম), খালেদা ওয়াহাব (বরিশাল), ফারজানা ববি রুমা (ঝিনাইদহ), হেনা বেগম (সিলেট) এবং দিলারা রহমান (রাজশাহী)।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন দি হাঙ্গার প্রজেক্ট-এর কান্ট্রি ডিরেক্টর ও গ্লোবাল ভাইস প্রেসিডেন্ট ড. বদিউল আলম মজুমদার। তিনি তাঁর বক্তব্যে বলেন, ‘আমরা সমাজের ইতিবাচক পরিবর্তন চাই। এ পরিবর্তন আনতে প্রয়োজন কিছু নিবেদিত প্রাণ। আপনারাই হলেন সে নিবেদিত প্রাণ কর্মী, যারা সামাজিক দায়বদ্ধতার জায়গা থেকে নারীর প্রতি বঞ্চনা রোধ এবং নারীর অধিকার প্রতিষ্ঠায় নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। সমাজ উন্নয়নে আপনাদের এ কার্যক্রম দেখে আমি অভিভূত।’

সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হওয়ার পর নিজের অনুভূতি ব্যক্ত করে জনাব রাশেদা আখ্তার বলেন, ‘আমাদের পরিচয় আমরা সবাই নারীনেত্রী। আমরা আমাদের নিজেদের মধ্যকার সম্পর্কগুলো আরও উন্নত করবো এবং নিষ্ঠার সাথে সমাজ উন্নয়নে আরও বেশি কাজ করবো।’ এ সময় তিনি নতুন কমিটিকে প্রয়োজনীয় পরার্মশ ও সহায়তা দেয়ার জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানান।

সভায় সংগঠনের দ্বি-বার্ষিক প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন জনাব নাছিমা আক্তার জলি। তিনি তাঁর বক্তব্যে বলেন, ‘নানাবিধ সীমাবদ্ধতা সত্ত্বেও আপনাদের সক্রিয় সহযোগিতার কারণে আমরা নেটওয়ার্ক-এর কাজ এগিয়ে নিতে যাচ্ছি। আশা করি, নেটওয়ার্ক-এর পঞ্চম জাতীয় সম্মেলনে গৃহীত ঘোষণাপত্র বাস্তবায়ন এবং সবার মতামতের ভিত্তিতে গৃহীত সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনার মাধ্যমে নেটওয়ার্ক-এর কাজ আরও বিস্তৃত করতে সক্ষম হবো।’

বিকশিত নারী নেটওয়ার্ক-এর কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির নির্বাচনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন সুজনÑসুশাসনের জন্য নাগরিক-এর কেন্দ্রীয় সমন্বয়কারী দিলীপ কুমার সরকার। সহ-নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন দি হাঙ্গার প্রজেক্ট-বাংলাদেশ-এর সিনিয়র প্রোগ্রাম অফিসার শামীমা আক্তার মুক্তা এবং লক্ষীপুর জেলার নারীনেত্রী ফাতেমা আক্তার লিপি। উল্লেখ্য, এপ্রিল-জুন ২০১৫ এ সময়ে পাঁচটি ইউনিয়নে বিকশিত নারী নেটওয়ার্ক-এর ইউনিয়ন কমিটি গঠিত হয়।