অ্যাসিড সহিংসতা প্রতিরোধে ১৪টি প্রচারাভিযান: অ্যাসিড সহিংসতা প্রতিরোধে অংশগ্রহণকারীগণের অঙ্গীকার গ্রহণ

acid campaignজাতিসংঘের এক প্রতিবেদন অনুযায়ী, ঘরে এবং বাইরে প্রতিনিয়ত সহিংসতার ঝুঁকির মধ্যে থাকেন বাংলাদেশের নারীরা। এখানে নারীর প্রতি সহিংসতার মধ্যে অ্যাসিড নিক্ষেপের ঘটনা সবচেয়ে বেশি ঘটে। এ সহিংসতা হ্রাসে দেশে বিভিন্ন আইন ও বিধি রয়েছে। কিন্তু তা সত্ত্বেও নারীর প্রতি অ্যাসিড সহিংসতা অব্যাহত রয়েছে। এজন্য আইন প্রয়োগের পাশাপাশি সামাজিক সচেতনতা বৃদ্ধি করা প্র্রয়োজন। এমন অনুধাবন থেকে অ্যাসিড সারভাইভার্স ফাউন্ডেশন-এর সহযোগিতায় দি হাঙ্গার প্রজেক্ট দেশব্যাপী সচেতনতা বৃদ্ধিমূলক প্রচারাভিযান পরিচালনা করে চলেছে। এরই ধারাবাহিকতায় জানুয়ারি-মার্চ ২০১৫ এ সময়ে সারাদেশে ১৪টি প্রচারাভিযান পরিচালিত হয়।

প্রচারাভিযানে ভিডিও ডকুমেন্টারির মাধ্যমে অ্যাসিড কোন ধরনের পদার্থ, অ্যাসিড সন্ত্রাসের শিকার কারা বেশি হয়, এ সন্ত্রাস প্রতিরোধে করণীয় কী? এর জন্য আইনে কী কী শাস্তির বিধান আছে ইত্যাদি বিষয়গুলো তুলে ধরা হয়। এছাড়া উপস্থিত বক্তারা নারীর প্রতি অ্যাসিড-সহ অন্যান্য সহিংসতা প্রতিরোধে করণীয় সম্পর্কে তাদের নিজ নিজ অভিমত ব্যক্ত করেন। প্রত্যেকটি প্রচারাভিযানেই অংশগ্রহণকারীগণ ভবিষ্যতে অ্যাসিড সন্ত্রাসে প্রতিরোধে নিজ নিজ অবস্থান থেকে ভূমিকা পালনের অঙ্গীকার করেন।