‘MDG Unions: Building Participatory Democracy from the Bottom Up in Rural Bangladesh’ প্রকল্পের শিক্ষণ ও অভিজ্ঞতা বিনিময় সভা আয়োজন

Undef exchange view 1 উন্নয়ন একটি সমন্বিত উদ্যোগের বিষয়। কোন একক শক্তির পক্ষে বিচ্ছিন্নভাবে জনগণের সার্বিক জীবনমানের উন্নয়ন নিশ্চিত করা সম্ভব নয়। এই উন্নয়ন লক্ষ্যসমূহ সফলভাবে অর্জনের জন্য প্রয়োজন সকল পক্ষের ঐক্যবদ্ধ প্রয়াস। এমনি একটি প্রয়াস দি হাঙ্গার প্রজেক্ট ও ব্র্যাক-এর যৌথ উদ্যোগে এবং জাতিসংঘ গণতন্ত্র তহবিল-এর সহযোগিতায় বাস্তবায়নাধীন ‘MDG Unions: Building Participatory Democracy from the Bottom Up in Rural Bangladesh’। এ প্রয়াসের শিক্ষণ ও অভিজ্ঞতা বিনিময়ের লক্ষ্যে ১৩ অক্টোবর, ২০১৪ ময়মনসিংহ জেলা পরিষদ মিলনায়তনে এক সভার আয়োজন করা হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ময়মনসিংহের জেলা প্রশাসক মুস্তাকীম বিল্লাহ ফারুকী। অনুষ্ঠানে সঞ্চালনার দায়িত্ব পালন করেন দি হাঙ্গার প্রজেক্ট-এর কান্ট্রি ডিরেক্টর ড. বদিউল আলম মজুমদার। উল্লেখ্য, প্রকল্পটি মে ২০১৩ থেকে ময়মনসিংহ ও টাঙ্গাইল জেলার দশটি ইউনিয়নে বাস্তবায়িত হচ্ছে।

আলোচনায় অংশ নিয়ে মুস্তাকীম বিল্লাহ ফারুকী বলেন, ‘সচেতন নাগরিক কর্তৃক জনপ্রতিনিধিদের নিকট প্রশ্ন করা ও জবাবদিহিতা চাওয়া এরং একইসঙ্গে জনপ্রতিনিধিদের জবাবদিহিতা এবং কথা শুনার ধৈর্য্য ও সহিষ্ণুতাই এই প্রকল্পের সবচেয়ে বড় শিক্ষণ। নির্বাচিত প্রতিনিধিদের নেতৃত্বে সরকারি-বেসরকারি সংস্থা, জনগণ ও নাগরিক সমাজের সমন্বিত উদ্যোগের মাধ্যমে এমডিজি ইউনিয়ন গড়ে তোলার পাশাপাশি ইউনিয়ন পরিষদের ওয়ার্ডসভা ও উন্মুক্ত বাজেট অধিবেশনের মধ্য দিয়ে তৃণমূলের গণতান্ত্রিক ব্যবস্থার অনুশীলন সম্ভব- এটিও এ প্রকল্পের অন্যতম প্রধান শিক্ষণ।’

প্রধান অতিথির বক্তব্যের পর সভায় উপস্থিত বিভিন্ন ব্যক্তিবর্গ তাদের অনুভূতি বিনিময় করেন। ভাবখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ তাজুল ইসলাম সরকার বলেন, ‘আমরা জনপ্রতিনিধি হিসেবে নির্বাচিত হয়েছি সত্য, কিন্ত ইউনিয়ন পরিষদের জন্য যে একটি আইন রয়েছে তা আমরা এই প্রকল্প পরিচালিত প্রশিক্ষণের মাধ্যমে প্রথম জানতে পারি। আমরা এখন নিয়মিত জনঅংশগ্রহণে ওয়ার্ডসভা ও উন্মুক্ত বাজেট অধিবেশন আয়োজন করছি। আমাদের ইউনিয়নে বাল্যবিবাহের হার কমেছে, ব্যাপক বৃক্ষরোপণ হয়েছে এবং সবার বাড়িতে স্বাস্থ্যসম্মত পায়খানা স্থাপনে উদ্বুদ্ধ ও সহযোগিতায় করা হচ্ছে।’

চর ঈশ্বরদিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোর্শেদ আলম জাহাঙ্গীর বলেন, ‘এ প্রকল্পের আওতাধীন প্রশিক্ষণগুলোর মাধ্যমে ইউনিয়ন পর্যায়ে মানুষের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি তথা মানুষের মধ্যে মালিকানা বোধের সৃষ্টি হয়েছে এবং তারা অধিকার সচেতন হয়ে উঠেছে। শুধু ইউনিয়ন পরিষদের একার পক্ষে যে সার্বিক উন্নয়ন সম্ভব নয় এ বিষয়টি আমাদের মাঝে স্পষ্ট হয়েছে। এ অনুধাবন থেকে জনমানুষকে সম্পৃক্ত করেই এখন আমরা প্রত্যেকটি কাজ করছি।’

উক্ত শিক্ষণ ও অভিজ্ঞতা বিনিময় সভায় আরও বক্তব্য প্রদান করেন ময়মনসিংহ সদর উপজেলা পরিষদের চেয়াম্যান কামরুল ইসলাম মোহাম্মদ ওয়ালিদ, ময়মনসিংহ সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আ.ন.ম ফয়জুল হক, কুষ্টিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জনাব নজরুল ইসলাম, চরনিলক্ষিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদ মীর এবং প্রকল্পভুক্ত এলাকার উজ্জীবক, নারীনেত্রী ও ইয়ূথ লিডারগণ।

সভাপতির বক্তব্যে ড. বদিউল আলম মজুমদার বলেন, ‘উজ্জীবক, নারীনেত্রী ও ইয়ূথ লিডার-সহ এলাকার জনমানুষের অংশগ্রহণে সম্মিলিতভাবে ইউনিয়ন পরিষদ কাজ করলে একটি ইউনিয়নের উন্নয়ন হওয়া তথা এমডিজি’র লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করা সম্ভব।’ এ সময় উপস্থিত স্বেচ্ছাব্রতীগণ স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে সম্পৃক্ত হয়ে উন্নয়ন কার্যক্রম পরিচালনায় ভূমিকা রাখার অঙ্গীকার করেন।

Undef exchange view 2এছাড়া ৮ ডিসেম্বর, ২০১৪ এই প্রকল্পের শিক্ষণ ও অভিজ্ঞতা বিনিময়ের লক্ষ্যে বাংলাদেশ শিশু একাডেমি টাঙ্গাইল জেলা মিলনায়তনে আরেকটি সভার আয়োজন করা হয়। সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সরকার বিভাগ ময়মনসিংহ জেলার উপ-পরিচালক গৌতম চন্দ্র পাল। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আবু সালেহ মোঃ মহিউদ্দিন খাঁ, সুজন-সুশাসনের জন্য নাগরিক টাঙ্গাইল জেলা কমিটি সভাপতি খান মোহাম্মদ খালেদ। অনুষ্ঠানে সঞ্চালনার দায়িত্ব পালন করেন দি হাঙ্গার প্রজেক্ট-এর কান্ট্রি ডিরেক্টর ও গ্লোবাল ভাইস প্রেসিডেন্ট  ড. বদিউল আলম মজুমদার। সভায় উপস্থিত ব্যক্তিবর্গ প্রকল্পের ভাল শিক্ষণগুলো বিনিময় করেন এবং সেগুলো দেশের সব ইউনিয়নে ছড়িয়ে দেয়ার আহ্বান জানান।